আলোময়.কম,ভিডিও সঙ্গীত, যোগাযোগ করুন,সঙ্গীত পাঠান fb page

সর্বশেষ মন্তব্য

বৃহস্পতিবার, ৭ আগস্ট, ২০১৪

পবিত্র কুর'আনের ৩০ টি দুয়া

[উল্লেখ্যঃ ২>১২৭ এর মানে হলো ২য় নম্বর সূরার ১২৭ নং আয়াত। ]
পোস্ট বড় হয়ে যাবার ভয়ে বাংলা অর্থ দিলাম না। দুয়াগুলো বাংলা অর্থসহ জানা জরুরী। জেনে নেবার জন্য tanzil.net ব্রাউজ করে আসুন।
১. সূরা বাক্বারা (২>১২৭)
رَ‌بَّنَا تَقَبَّلْ مِنَّا ۖ إِنَّكَ أَنتَ السَّمِيعُ الْعَلِيمُ
২. সূরা বাক্বারা (২>১২৮)
رَ‌بَّنَا وَاجْعَلْنَا مُسْلِمَيْنِ لَكَ وَمِن ذُرِّ‌يَّتِنَا أُمَّةً مُّسْلِمَةً لَّكَ وَأَرِ‌نَا مَنَاسِكَنَا وَتُبْ عَلَيْنَا ۖ إِنَّكَ أَنتَ التَّوَّابُ الرَّ‌حِيمُ
৩. সূরা বাক্বারা (২>২০১)
رَ‌بَّنَا آتِنَا فِي الدُّنْيَا حَسَنَةً وَفِي الْآخِرَ‌ةِ حَسَنَةً وَقِنَا عَذَابَ النَّارِ‌
৪.  সূরা বাক্বারা (২>২৮৬)
رَ‌بَّنَا لَا تُؤَاخِذْنَا إِن نَّسِينَا أَوْ أَخْطَأْنَا ۚ رَ‌بَّنَا وَلَا تَحْمِلْ عَلَيْنَا إِصْرً‌ا كَمَا حَمَلْتَهُ عَلَى الَّذِينَ مِن قَبْلِنَا ۚ رَ‌بَّنَا وَلَا تُحَمِّلْنَا مَا لَا طَاقَةَ لَنَا بِهِ ۖ وَاعْفُ عَنَّا وَاغْفِرْ‌ لَنَا وَارْ‌حَمْنَا ۚ أَنتَ مَوْلَانَا فَانصُرْ‌نَا عَلَى الْقَوْمِ الْكَافِرِ‌ينَ 
৫. সূরা আলে ইমরান (৩>৮)
رَ‌بَّنَا لَا تُزِغْ قُلُوبَنَا بَعْدَ إِذْ هَدَيْتَنَا وَهَبْ لَنَا مِن لَّدُنكَ رَ‌حْمَةً ۚ إِنَّكَ أَنتَ الْوَهَّابُ
৬. সূরা আলে ইমরান (৩>১৬)
رَ‌بَّنَا إِنَّنَا آمَنَّا فَاغْفِرْ‌ لَنَا ذُنُوبَنَا وَقِنَا عَذَابَ النَّارِ‌
৭. সুরা আলে ইমরান (৩>৫৩)
رَ‌بَّنَا آمَنَّا بِمَا أَنزَلْتَ وَاتَّبَعْنَا الرَّ‌سُولَ فَاكْتُبْنَا مَعَ الشَّاهِدِينَ
৮. সূরা আলে ইমরান (৩>১৪৭)
رَ‌بَّنَا اغْفِرْ‌ لَنَا ذُنُوبَنَا وَإِسْرَ‌افَنَا فِي أَمْرِ‌نَا وَثَبِّتْ أَقْدَامَنَا وَانصُرْ‌نَا عَلَى الْقَوْمِ الْكَافِرِ‌ينَ
৯. সুরা আলে ইমরান (৩>১৯১)
رَ‌بَّنَا مَا خَلَقْتَ هَـٰذَا بَاطِلًا سُبْحَانَكَ فَقِنَا عَذَابَ النَّارِ‌
১০. সূরা আলে ইমরান (৩>১৯২)
رَ‌بَّنَا إِنَّكَ مَن تُدْخِلِ النَّارَ‌ فَقَدْ أَخْزَيْتَهُ ۖ وَمَا لِلظَّالِمِينَ مِنْ أَنصَارٍ‌
১১. সূরা আলে ইমরান (৩>১৯৩)
رَّ‌بَّنَا إِنَّنَا سَمِعْنَا مُنَادِيًا يُنَادِي لِلْإِيمَانِ أَنْ آمِنُوا بِرَ‌بِّكُمْ فَآمَنَّا ۚ رَ‌بَّنَا فَاغْفِرْ‌ لَنَا ذُنُوبَنَا وَكَفِّرْ‌ عَنَّا سَيِّئَاتِنَا وَتَوَفَّنَا مَعَ الْأَبْرَ‌ارِ‌
১২. সূরা আলে ইমরান (৩>১৯৪)
رَ‌بَّنَا وَآتِنَا مَا وَعَدتَّنَا عَلَىٰ رُ‌سُلِكَ وَلَا تُخْزِنَا يَوْمَ الْقِيَامَةِ ۗ إِنَّكَ لَا تُخْلِفُ الْمِيعَادَ 
১৩. সূরা মায়িদা (৫>৮৩)
رَ‌بَّنَا آمَنَّا فَاكْتُبْنَا مَعَ الشَّاهِدِينَ
১৪. সূরা আ'রাফ (৭>২৩)
رَ‌بَّنَا ظَلَمْنَا أَنفُسَنَا وَإِن لَّمْ تَغْفِرْ‌ لَنَا وَتَرْ‌حَمْنَا لَنَكُونَنَّ مِنَ الْخَاسِرِ‌ينَ
১৫. সূরা আ'রাফ (৭>৪৭)
رَ‌بَّنَا لَا تَجْعَلْنَا مَعَ الْقَوْمِ الظَّالِمِينَ
১৬. সূরা আ'রাফ (৭>৮৯)
رَ‌بَّنَا افْتَحْ بَيْنَنَا وَبَيْنَ قَوْمِنَا بِالْحَقِّ وَأَنتَ خَيْرُ‌ الْفَاتِحِينَ
১৭. সূরা আরাফ (৭>১২৬)
رَ‌بَّنَا أَفْرِ‌غْ عَلَيْنَا صَبْرً‌ا وَتَوَفَّنَا مُسْلِمِينَ
১৮. সূরা ইউনুস (১০>৮৫-৮৬)
رَ‌بَّنَا لَا تَجْعَلْنَا فِتْنَةً لِّلْقَوْمِ الظَّالِمِينَ ﴿٨٥ وَنَجِّنَا بِرَ‌حْمَتِكَ مِنَ الْقَوْمِ الْكَافِرِ‌ينَ
১৯. সূয়া ইব্রাহীম (১৪>৪০)
رَ‌بِّ اجْعَلْنِي مُقِيمَ الصَّلَاةِ وَمِن ذُرِّ‌يَّتِي ۚ رَ‌بَّنَا وَتَقَبَّلْ دُعَاءِ
২০. সূরা ইব্রাহীম (১৪>৪১)
رَ‌بَّنَا اغْفِرْ‌ لِي وَلِوَالِدَيَّ وَلِلْمُؤْمِنِينَ يَوْمَ يَقُومُ الْحِسَابُ
২১. সূরা কাহফ (১৮>১০)
رَ‌بَّنَا آتِنَا مِن لَّدُنكَ رَ‌حْمَةً وَهَيِّئْ لَنَا مِنْ أَمْرِ‌نَا رَ‌شَدًا
২২. সূরা মুমিনূন (২৩>১০৯)
رَ‌بَّنَا آمَنَّا فَاغْفِرْ‌ لَنَا وَارْ‌حَمْنَا وَأَنتَ خَيْرُ‌ الرَّ‌احِمِينَ     
২৩. সূরা ফুরকান (২৫>৬৫)
رَ‌بَّنَا اصْرِ‌فْ عَنَّا عَذَابَ جَهَنَّمَ ۖ إِنَّ عَذَابَهَا كَانَ غَرَ‌امًا
২৪. সূরা ফুরকান (২৫>৭৪)
رَ‌بَّنَا هَبْ لَنَا مِنْ أَزْوَاجِنَا وَذُرِّ‌يَّاتِنَا قُرَّ‌ةَ أَعْيُنٍ وَاجْعَلْنَا لِلْمُتَّقِينَ إِمَامًا
২৫. সূরা মুমিন /গাফির (৪০>৭)
رَ‌بَّنَا وَسِعْتَ كُلَّ شَيْءٍ رَّ‌حْمَةً وَعِلْمًا فَاغْفِرْ‌ لِلَّذِينَ تَابُوا وَاتَّبَعُوا سَبِيلَكَ وَقِهِمْ عَذَابَ الْجَحِيمِ 
২৬. সূরা গাফির (৪০>৮-৯)
رَ‌بَّنَا وَأَدْخِلْهُمْ جَنَّاتِ عَدْنٍ الَّتِي وَعَدتَّهُمْ وَمَن صَلَحَ مِنْ آبَائِهِمْ وَأَزْوَاجِهِمْ وَذُرِّ‌يَّاتِهِمْ ۚ إِنَّكَ أَنتَ الْعَزِيزُ الْحَكِيمُ ﴿٨﴾ وَقِهِمُ السَّيِّئَاتِ ۚ وَمَن تَقِ السَّيِّئَاتِ يَوْمَئِذٍ فَقَدْ رَ‌حِمْتَهُ ۚ وَذَٰلِكَ هُوَ الْفَوْزُ الْعَظِيمُ        
২৭. সূরা হাশর (৫৯>১০)
رَ‌بَّنَا اغْفِرْ‌ لَنَا وَلِإِخْوَانِنَا الَّذِينَ سَبَقُونَا بِالْإِيمَانِ وَلَا تَجْعَلْ فِي قُلُوبِنَا غِلًّا لِّلَّذِينَ آمَنُوا رَ‌بَّنَا إِنَّكَ رَ‌ءُوفٌ رَّ‌حِيمٌ
২৮. সূরা মুমতাহিনা (৬০>৪)
رَّ‌بَّنَا عَلَيْكَ تَوَكَّلْنَا وَإِلَيْكَ أَنَبْنَا وَإِلَيْكَ الْمَصِيرُ‌ 
২৯. সূরা মুমতাহিনা (৬০>৫)
رَ‌بَّنَا لَا تَجْعَلْنَا فِتْنَةً لِّلَّذِينَ كَفَرُ‌وا وَاغْفِرْ‌ لَنَا رَ‌بَّنَا ۖ إِنَّكَ أَنتَ الْعَزِيزُ الْحَكِيمُ 
৩০. সূরা তাহরিম (৬৬>৮)
رَ‌بَّنَا أَتْمِمْ لَنَا نُورَ‌نَا وَاغْفِرْ‌ لَنَا ۖ إِنَّكَ عَلَىٰ كُلِّ شَيْءٍ قَدِيرٌ‌     

বৃহস্পতিবার, ৮ মে, ২০১৪

সূরা আনকাবুতের আয়াতভিত্তিক বিষয়বস্তূ ও সারসংক্ষেপ

সুরা আনকাবুতঃ
সূরা ক্রমঃ ২৯, মোট আয়াতঃ ৬৯। নাযিলঃ মাক্কী যুগ
২-আয়াতঃ ঈমানের মৌখিক দাবী যথেষ্ট নয়, পরীক্ষা দিতে হবে।
৬-আয়াতঃ কেউ চেষ্টা সাধনা করলে নিজের জন্যেই ভালো।
৭-আয়াতঃ আমলে সালেহ প্রয়োজন
৮-আয়াতঃ পিতা মাতার সাথে সদাচারের নির্দেশ।
৮-আয়াতঃ পিতামাতা শিরক করতে বললে আনুগত্য করা যাবে না।
৮-আয়াতঃ আল্লাহর দিকে ফিরে যেতে হবে।
৯-আয়াতঃ আমলে সালেহ
১৮-আয়াতঃ আগেও রাসুলদের মিথ্যা প্রতিপন্ন করা হয়েছে।
১৮-আয়াতঃ রাসুলদের দায়িত্ব শুধু দাওয়াত পৌঁছিয়ে দেওয়া।
১৯-আয়াতঃ আল্লাহ সৃষ্টির কাজ শুরু করেন ও পুনরায় তাকে অস্তিত্বে আনেন।
২০-আয়াতঃ পৃথিবীতে ভ্রমণ কর।
২২-আয়াতঃ তোমরা পৃথিবী ও আকাশে আল্লাহকে অক্ষম করে দিতে পারবে না।
২৪-আয়াতঃ ইসলামের প্রতিনিধিদের উপর হত্যা নির্যাতনের উদাহরণ।
৪১-আয়াতঃ আল্লাহ ছাড়া অন্য অভিভাবকের আশ্রয় মাকড়সার জালের মত ঠুনকো।
৪১-আয়াতঃ মকড়সার ঘর দুর্বলতম।
৪৪-আয়াতঃ আল্লাহ আকাশ ও যমীন সত্যসহ সৃষ্টি করেছেন।
৪৪-আয়াতঃ এতে নিদির্শন রয়েছে।
৪৫-আয়াতঃ সালাত/নামাজ সকল মন্দ ও খারাপ কাজ থেকে বিরত রাখে।
৫৩-আয়াতঃ পৃথিবীতে নির্দিষ্ট সময় নাগাদ অবকাশ।
৫৪-আয়াতঃ পরকালের শাস্তি। উপর ও নিচ দুদিক থেকেই।
৫৬-আয়াতঃ আল্লাহর পৃথিবী প্রশস্ত। তাই ইবাদাত ছাড়া যাবে না।
৫৭-আয়াতঃ সকলকে মৃত্যুর সাধ গ্রহণ করতে হবে।
৫৭-আয়াতঃ সবাইকে আল্লাহর দিকে ফিরে যেতে হবে।
৫৮-আয়াতঃ ঈমানের সাথে আমলে সালেহ প্রয়োজন
৫৯-আয়াতঃ সবর ও তাওয়াক্কুলের গুরুত্ব।
৬২-আয়াতঃ আল্লাহই রিযক বাড়ান, কমান।
৬৪-আয়াতঃ দুনিয়ার জীবন খেল তামাশা মাত্র।
৬৯-আয়াতঃ যারা আল্লাহর পথে সংগ্রাম/চেষ্টা সাধনা করে, আল্লাহই তাদেরকে তাঁর পথে পরিচালিত করেন। 

রবিবার, ৩০ মার্চ, ২০১৪

সূরা লুকমানের আয়াতভিত্তিক বিষয়বস্তূ ও সারসংক্ষেপ

সূরা লুকমানের আয়াতভিত্তিক বিষয়বস্তূ ও সারসংক্ষেপ

একটি লক্ষ্য হাতে নিয়েছি। তা হল, কুর'আনের সূরা ভিত্তিক আয়াতগুলোর একটি সারসংক্ষেপ তৈরি করা।

সেই উদ্দেশ্যে এবারে সূরা লুকমান দিয়ে শুরু হল।

বিঃদ্রঃ এখানে সবগুলো আয়াত উল্লেখ করা হয়নি। যেসব আয়াত কুর'আনে বিভিন্ন জায়গায় একাধিকবার ব্যবহৃত হয়েছে এবং যেগুলোকে বর্তমান পরিবেশ পরিস্থিতির সাথে বেশি প্রাসংগিক মনে হয়েছে এখানে শুধু সেগুলো তুলে ধরা হয়েছে।

নচেত, কুর'আনের আয়াতসমূহ থেকে বেছে বেছে 'গুরুত্বপূর্ণ' আয়াত বের করা আমার লক্ষ্য নয়। এটার দুঃসাহসের কল্পনাও আমি করতে পারি না। কারণ কুর'আনের সব আয়াতই গুরুত্বপূর্ণ। আল্লাহই ভালো জানেন কোন আয়াত কখন আমাদের বেশি কাজে লাগবে।

তবে আমার এ কাজের লক্ষ্য হল কুর'আনকে সহজভাবে বোঝা, প্রয়োজনীয় আয়াতটি সহজে খুজে পাওয়া ও কুর'আন গবেষকদের একটু খেদমত করা। আমার এ উদ্দেশ্যগুলো যাতে পূরণ হয় এবং সেই মাফিক যাতে পোস্ট করতে পারি, আল্লাহর কাছে এই দোয়া।

নিচে আয়াতের ক্রম অনুযায়ী সূরা লুকমানের সারসংক্ষেপ ও বেশি ব্যবহৃত আয়াতগুলো আয়াত নম্বর সহ দেওয়া হল।

সূরা লুকমানঃ

সূরা নম্বরঃ ৩১; মোট আয়াতঃ ৩৪

৮-আয়াতঃ ঈমানের সাথে আমলে সালেহ (নেক আমল) প্রয়োজন

১৪-আয়াতঃ পিতামাতার সাথে সদ্ব্যবহার করতে হবে।

১৪-আয়াতঃ আল্লাহর দিকে সবাইকে ফিরে যেতে হবে।

১৫-আয়াতঃ আল্লাহর বিরুদ্ধাচরণ করলে পিতামাতার আনুগত্য করা যাবে না।

১৫-আয়াতঃ সবাইকে আল্লাহর দিকে ফিরে যেতে হবে, তখন কর্মকাণ্ড বলে দেওয়া হবে। (ফাঁস হয়ে যাবে)

১৮-আয়াতঃ (ছেলের প্রতি হযরত লুকমানের উপদেশ) অহংকার নিয়ে যমিনে চলাফেরা করো না।

১৯-আয়াতঃ গাধার আওয়াজ সবচেয়ে কর্কশ

২৭-আয়াতঃ পৃথিবীর সব গাছ কলম এবং সমুদ্রের সব পানি কালি হলেও আল্লাহর প্রশংসা লেখা শেষ হবে না, আরো সাতটি সমুদ্র আনলেও [আরোঃ সুরা কাহফ]

২৯-আয়াতঃ তিনি রাতকে দিনের মধ্যে ও দিনকে রাতের মধ্যে প্রবেশ করান। [বিভাগঃ বিজ্ঞান]

২৯-আয়াতঃ চন্দ্র ও সূর্য্য নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত আবর্তন করবে। {বিভাগঃ বিজ্ঞান]

৩৩-আয়াতঃ হাশরের দিন পিতা সন্তানের বা সন্তান পিতার বিনিময় দিতে পারবে না {বিভাগঃ পরকালের পরিস্থিতি]

৩৩-আয়াতঃ দুনিয়ার জীবন যেন তোমাদের প্রতারিত না করে।